পাওনা টাকা চাওয়ায় গৃহবধূকে হত্যা

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে পাওনা টাকা চাওয়ায় কিল-ঘুষি ও মোটরসাইকেল চাপায় এক গৃহবধূকে হত্যা করেছে দেনাদার রবিউল ইসলাম।

এ ঘটনাটি ঘটেছে রোববার সকালে ফুলবাড়ী উপজেলার নাওডাঙ্গা ইউনিয়নের বালারহাট ডিএম দাখিল মাদ্রাসা সংলগ্ন এলাকায়।

নিহত আন্জু আরা নাওডাঙ্গা ইউনিয়নের বালাটারী গ্রামের বাচ্চু মিয়ার স্ত্রী।

নিহত গৃহবধূর জেঠাতো ভাই ও নাওডাঙ্গা ইউপির গ্রাম পুলিশ আব্দুল করিম ডেইলি বাংলাদেশকে জানান, তারা বোন নিহত আন্জু আরা নাওডাঙ্গা ইউনিয়নের বালাটারী গ্রামের দুধ বিক্রেতা নবি মিয়ার ছেলে রবিউল ইসলামকে ১ লাখ টাকা কর্জ দেয়। টাকা দেয়ার ৬ মাস অতিবাহিত হলেও রবিউল ইসলাম তা পরিশোধ করতে টালবাহানা করে।

এরমধ্যে আন্জু আরার মেয়ে রুমী অসুস্থ্য হয়ে রংপুর মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি হলে তার চিকিৎসায় টাকার প্রয়োজন হয়। মেয়ের চিকিৎসার টাকার তাগিদে গৃহবধূ আন্জু আরা রোববার সকাল ১১ টার দিকে দেনাদার রবিউল ইসলামকে সড়কে দেখে পাওনা টাকা চাইতে গেলে মোটরসাইকেলে থাকা রবিউল ইসলাম ক্ষিপ্ত হয়ে পাওনাদার আন্জু আরাকে কিল-ঘুষি মেরে সড়কে ফেলে দেয়। এরপর তাকে মোটরসাইকেল চাপা দিয়ে সহযোগীদের নিয়ে সটকে পড়ে।

পরে সড়ক থেকে তার স্বজনরা আন্জু আরাকে উদ্ধার করে ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় নিহত আন্জু আরার ছেলে দুদুল মিয়া ফুলবাড়ী থানায় রোববার বিকেলে রবিউল ইসলামসহ দুইজনের নামে হত্যা মামলা দায়ের করেছে। খবরঃ ডেইলি বাংলাদেশ ডট কম 

এ ব্যাপারে ফুলবাড়ী থানার এসআই হাবিবুর রহমান জানান, নিহত গৃহবধূর ছেলের হত্যা মামলটি গ্রহণ করা হয়েছে। মরদেহ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Related Posts

Add Comment