মাগুরায় ধর্ষণের ঘটনায় সিগারেট চুরির মামলা!

গৃহবধূকে ধর্ষণ ও সেই ঘটনা ভিডিও চিত্র ধারণের অভিযোগে এলাকাবাসী দুজনকে আটক করে পুলিশে দিলেও মাগুরার শ্রীপুর থানা-পুলিশ তাঁদের সিগারেট চুরির পুরোনো মামলায় জেলহাজতে পাঠিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ভয়ে ও লজ্জায় প্রকাশ্যে মুখ খুলছেন না নিপীড়িত হিন্দু পরিবারের সদস্যরা।

এলাকাবাসী জানায়, গতকাল মঙ্গলবার ভোর পাঁচটার দিকে উপজেলার এক গৃহবধূ নিকটাত্মীয়ের বাড়িতে যাওয়ার জন্য বরিশাট গ্রামে যান। মাজেদা ফিলিং স্টেশনের কাছে পৌঁছালে ওই গ্রামের রবিউল মোল্লা (২২) তাঁর পিছু নেন। এ সময় তিনি রক্ষা পেতে দৌড়ে ওই গ্রামের হামিদের বাড়ির উঠানে গিয়ে আশ্রয় নেন। বাড়ির লোকজন ঘর থেকে বের হয়ে এলে রবিউল চলে যান। কিছুক্ষণ পর ওই বাড়ি থেকে বের হলে রবিউল প্রতিবেশী আনিচ বিশ্বাসকে সঙ্গে নিয়ে গৃহবধূকে ধরে নিয়ে যান নদীর ধারে শ্মশান ঘাটে।

নির্যাতনের শিকার গৃহবধূর বাড়িতে গেলে কেউ সাংবাদিকদের কাছে কথা বলতে রাজি হননি। তবে নাম প্রকাশ না করে তাঁর এক আত্মীয় বলেন, ওই দুজন প্রথমে ছুরি দেখিয়ে সোনার চেইন এবং মোবাইল কেড়ে নেন। তারপর মুখ বেঁধে বরিশাট শ্মশানের ধারে জঙ্গলে নিয়ে একজন শারীরিকভাবে নির্যাতন চালান। আর অপরজন ভিডিও করতে থাকেন। এ সময় তাঁর চিৎকারে কয়েকজন এগিয়ে এলে দুজন পালিয়ে যান।

ঘটনার পর স্থানীয় শ্রীকোল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মুতাসিম বিল্লাহ অভিযুক্ত দুজনকে ধরে পুলিশে সোপর্দ করেন। স্থানীয় ব্যক্তিদের অভিযোগ, শ্রীপুর থানা-পুলিশ অভিযুক্ত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে নারী নির্যাতন কিংবা এ–সংক্রান্ত কোনো মামলা না দিয়ে নানা রকম নাটক তৈরি করেন। পাশাপাশি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওই গৃহবধূকেই পতিতা সাজানোর চেষ্টা করে। খবরঃ প্রথম আলো 

মুতাসিম বিল্লাহ বলেন, ‘ঘটনার পরপর আমি গৃহবধূর সঙ্গে কথা বলেছি। তাৎক্ষণিকভাবে তিনি শারীরিক নির্যাতনের কথা বলেননি। কিন্তু সোনার চেইন ছিনতাইয়ের কথা জেনে অভিযুক্তদের পুলিশে তুলে দেওয়া হয়েছে। তবে নির্যাতনের কোনো ঘটনা ঘটে থাকলে তাঁদের বিচার হওয়া উচিত।’

এ বিষয়ে গতকাল বেলা আড়াইটার দিকে শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘ধর্ষণের কোনো অভিযোগ পাইনি। তবে শুনেছি ওই মহিলার চরিত্র খারাপ। এটি একটি মিউচুয়াল কনটাক্টের ঘটনা। কোনো কিছুর বিনিময়ে তিনি ওই দুজনের সঙ্গে গিয়েছিলেন। যেহেতু ইউপি চেয়ারম্যান দুজনকে পুলিশে সোপর্দ করেছেন। তাই আটকে রাখার জন্য তাঁদের নাকোল বাজারে সিগারেট চুরির একটি মামলায় ঢুকিয়ে চালান করে দেওয়া হয়েছে।’

Related Posts

Add Comment