রাজৈরে পরকীয়ার জেরে যুবককে কুপিয়ে হত্যা

মাদারীপুরের রাজৈরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চেয়ারম্যানের স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়া প্রেম,  স্থানীয় বিরোধ ও নির্বাচনী জেরে সোহেল নামে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করেছে স্থানীয় চেয়ারম্যান ও তার লোকেরা। 

রাজৈর উপজেলার বাজিতপুর ইউপির মজুমদার বাজারে এ ঘটনা ঘটে। 

নিহত সোহেল বাজিতপুর গ্রামের খালেক হাওলাদারের ছেলে। সে স্থানীয় বাজারে পোল্ট্রি মুরগি ব্যবসা করতো। 

ইউ,পি চেয়ারম্যান মো. সিরাজুল ইসলাম তার স্ত্রীকে নিয়ে ইউপি ভবনের দোতালায় বসবাস করতো। বাজারে দোকান ও ইউপি ভবন একই স্থানে হওয়ায় সোহেল হাওলাদারের সঙ্গে চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম হাওলাদারের স্ত্রী তিসার পরকীয়া প্রেম জমে উঠে।

ঘটনা টের পেয়ে চেয়ারম্যন তার স্ত্রীকে ১৫ দিন আগে ঢাকা পাঠিয়ে দেন। এ বিষয়টিকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার মাগরেবের নামাজের পর চেয়াম্যান সিরাজুল ইসলাম হাওলাদার তার স্বজনদের নিয়ে সোহেলের ওপর হামলা চালায় এবং ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে । গুরুতর আহত অবস্থায় সোহেলকে প্রথমে রাজৈর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। 

নিহতের বড় ভাই বাবু হাওলাদার জানান, পরিকল্পিতভাবে চেয়ারম্যান ও তার লোকেরা তার ভাইকে বাজারে একা পেয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে।  খবরঃ ডেইলি বাংলাদেশ ডট কম 

থানার ওসি মো. শাহজাহান মিয়া জানান, অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বের জেরে চেয়ারম্যান ও তার লোকেরা সোহেলকে হত্যা করেছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা যায় । মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মাদারীপুর মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Related Posts

Add Comment