চকরিয়ায় ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী ও প্রতিবেশী বিধবাকে গণধর্ষণ

কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার হারবাং ইউনিয়নের ইছাছড়ি এলাকায় এক ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী ও প্রতিবেশী বিধবা নারীকে গণধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটলেও আজ শনিবার বিষয়টি প্রকাশ পায়।

জানা গেছে, উপজেলার হারবাং ইউনিয়নের ইছাছড়ি এলাকার ছাবের আহমদের ছেলে মো. আসিফ স্থানীয় ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন। ঐ ছাত্রী প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ক্ষুব্ধ হয় আসিফ। এ ঘটনায় নিরাপত্তার কারণে ঐ ছাত্রীকে বাড়ির অদূরে স্থানীয় এক প্রতিবেশীর বাড়িতে রাখা হয়।

গত বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে আসিফ আরো ৫-৬জন বখাটে মিলে ওই ছাত্রীর বাড়িতে হামলা করে। ওই ছাত্রীকে বাড়িতে না পেয়ে তার মা-বাবাকে মারধর করে। এক পর্যায়ে মেয়ে কোথায় জিজ্ঞেস করলে পার্শ্ববর্তী প্রতিবেশীর বাড়িতে রয়েছে বলে জানায়। পরে বখাটেরা ঐ প্রতিবেশীর ঘরে প্রবশে করে ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রীকে জোরপূর্বক টেনেহিঁচড়ে ঘর থেকে বের করে পার্শ্ববর্তী পরিত্যক্ত একটি ঘরে নিয়ে বখাটেরা ধর্ষণ করে। এসময় ধর্ষণ কাজে বাধা দিতে গেলে প্রতিবেশী বিধবা নারীকেও দল বেধে গণধর্ষণ করে তারা। সকালে ঐ ছাত্রীকে উদ্ধার করে প্রথমে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ওসিসি সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে। হারবাং ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মিরানুল ইসলাম বলেন, ঘটনাটি শুনেছি। এ ব্যাপারে থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়েছে। চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হাবিবুর রহমান বলেন, ঘটনাটি জানার পর হারবাং পুলিশ ফাঁড়ির এসআই শাহাদত হোসেনকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। খবরঃ বাংলাদেশ প্রতিদিন 

Related Posts

Add Comment